1. raselahamed29@gmail.com : admin :
  2. muktirbarta85@gmail.com : muktirbarta :
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৪:২৪ পূর্বাহ্ন
এই মুহুর্তে :
সংবাদ প্রকাশের ফলে পেপার বিক্রেতা ইউসুফের পাশে উদ্ভাবক মিজানুর রহমান উল্লাপাড়ায় পানিতে ডুবে কিশোরের মৃত্যু। বেলকুচিতে অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার ফোন করলেই করোনা রোগীর বাড়ি পৌঁছে যাবে স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের অক্সিজেন দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন কুষ্টিয়াতে দুই দিনে দুই দোকান চুরি আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা গোয়ালন্দে স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন বিনোদন নির্ভর নতুন প্যাকেজ নিয়ে এলো আকাশ ‘আকাশ লাইট প্লাস’ প্যাকেজটির মাসিক সাবস্ক্রিপশন ফি ৩০০ টাকা কুষ্টিয়ায় সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের সভা অনুষ্ঠিত দৌলতপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডি এস ভি এয়ার এন্ড সী লিমিটেড ইন্টারন্যাশনাল ডেনিশ ফ্রেট ফোরওয়ার্ডিং কোম্পানি এর পক্ষ থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান

বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার ৭৫ হাজার ৭শ ৪৭হেক্টর জমিতে পাট উৎপাদন পাট লক্ষ্যমাত্রা উৎপাদন ৩৭ লাখ ৫হাজার ৫০ মেট্রিক টন।

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২৬১ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

ৃৃৃ

বেলাল হোসেন,কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি

বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশ পাটের জন্য বিখ্যাত পাটের আর এক নাম সোনালী আঁশ বলা হয়। সরকার প্রধান প্লাষ্টিক বস্তা পন্য বহন নিষিদ্ধ করায় বর্তমানে পাট চাষীরা পাটরে আবাদের ঝুকে পড়েছে। দেশের মধ্যে ফলন ও মানের দিক দিয়ে বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলা সর্বোচ্চ স্থান অধিকার করেছে । বর্তমানে পাটের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে । বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার অধিকাংশ মানুষ কৃষির উপর নির্ভরশীল । এরমধ্যে পাট ও পিয়াজ অন্যতম ফসল । পূর্বে এই এলাকার কৃষকরা বৃষ্টির পর পাটের বীজ বপন করতো । বীজ বপন করার ১০/১৫ দিনের মধ্যেই আবার ঘনঘন বৃষ্টি হতো । কোন প্রকার সেচের ব্যবস্থা ছিলো না । রৌদ-বৃষ্টি ও আবহাওয়া পাটের অনুকুলে থাকার কারণে পাটের উৎপাদন ভালো হতো । কিন্তু অতি বৃষ্টির ফলে পাটের আবাদ ক্ষতি হয়েছে এরপরও কৃষকরা সে পাটের ক্ষতি পুসিয়ে নিয়েছে।এবছরে এই বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার ৭৫ হাজার ৭শ ৪৭ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ করা হয়েছে । বর্তমানে পাটের অবস্থান খুবই সন্তোষজনক। । বর্তমানে বৃুহত্তর জেলার ১৩ টি উপজেলা বিভিন্ন স্থানে পাট কর্তন পানিতে জাগ দিয়ে সহ সোনালী আঁশ সংগ্রহ চলছে । উল্লেখ্য সাড়ে ৭ বিঘায় জমির সমান ১ হেক্টর , ৫ মন সমান এক বেল। বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলায় ৭২ হাজার ৮১ হেক্টের জমিতে পাট চাষ করা হয়েছে। এর মধ্যে কুষ্টিয়া জেলায় ঃ পাট আবাদ করা হয়েছে ৩৯ হাজার ৫ শ ১৭ হেক্টের।পাট উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ১৯লাখ ৭৫ হাজার ৪০ মেট্রিক টন পাট উৎপাদন সম্ববনা রয়েছে। চুয়াঙ্গায়া জেলায় ঃ পাট আবাদ করা হয়েছে ১৬ হাজার ৫শ ৩০ হেক্টের পাট উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ৮লাখ ২৫ হাজার ৮শ মেট্রিক টন পাট উৎপাদন সম্ববনা রয়েছে। ও মেহেরপুর জেলায় ঃ পাট আবাদ ১৯ হাজার ৭শ হেক্টের জমিতে পাট উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ৯লাখ ৫হাজার মেট্রিক টন পাট উৎপাদন সম্ববনা রয়েছে।
বর্তমানে পাট চাষী প্রতি মন পাট ২৫শ হতে ২৭শ টাকার মধ্যে বিক্রয় করছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু

বিশ্বে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
© All rights reserved © 2020 dailymuktirbarta.com

Design & Developed By : Anamul Rasel

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.