1. raselahamed29@gmail.com : admin :
  2. muktirbarta85@gmail.com : muktirbarta :
মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৭:০৯ অপরাহ্ন
এই মুহুর্তে :
কুষ্টিয়ায় নিউ জন উন্নয়ন সংস্থা নামে সুদের রমরমা ব্যবসা কুষ্টিয়ায় সাংবাদিকদের সাথে নবাগত পুলিশ সুপারের মতবিনিময় কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ভূয়া পুলিশ অফিসার আটক। কুমারখালীতে জাতীয় ভোটার দিবস পালিত কুষ্টিয়ার ঝাউদিয়ার ইউনিয়নে ক্রিকেট খেলার উদ্ধোধন করলেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী টিপু বিশ্বাস। নাগরিক টিভির চতুর্থ বর্ষে পদার্পৎণ উপলক্ষে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসি থেকে। কুষ্টিয়ায় গ্রাম বাংলার ল্যাম্প কুপি বাতি এখন শুধুই স্মৃতি বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে কুষ্টিয়া জেলার এসপি খাইরুল আলমের শ্রদ্ধা নিবেদন। কুষ্টিয়ায় হাইওয়ে পুলিশের অভিযান বিদেশী পিস্তল ও গুলি উদ্ধার ঝসলঙ্গায় সাখাওয়াত এইস মেমোরিয়াল হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি !সলঙ্গায় সাখাওয়াত এইস মেমোরিয়াল হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি !ঝ

কুষ্টিয়ায় ডোপ টেস্টে মাদক সেবনের প্রমাণ পাওয়ায় আট পুলিশ সদস্য চাকরিচ্যুত

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৮৯ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধি।

ডোপ টেস্টে মাদক সেবনের প্রমাণ পাওয়ায় কুষ্টিয়া জেলায় কর্মরত আট পুলিশ সদস্যকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে বলে পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে। তাদের মধ্যে দু‘জন উপপরিদর্শক (এসআই), দু‘জন সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) এবং বাকিরা কনস্টেবল পর্যায়ের। এ ছাড়া এক সার্জেন্টসহ দু‘জনের বিষয়ে তদন্ত অব্যাহত আছে।

জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বর্তমান পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত পুলিশ সুপার হিসেবে যোগ দেওয়ার পর মাদকের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নেন।
মাদক ব্যবসায়ী, সেবনকারীদের বিষয়ে যেমন কঠোর ব্যবস্থা নেন, তেমনি পুলিশে কারা কারা মাদক ব্যবসা ও সেবনের সঙ্গে জড়িত তাও খূঁজে বের করা নির্দেশ দেন। এরপর শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীদের পাকড়াও করার পাশাপাশি পুলিশেও শুরু হয় শুদ্ধি অভিযান।

আইজিপির নির্দেশে পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্ট করার উদ্যোগ নেন পুলিশ সুপার। তিনি সহেন্দভাজন ও গোয়েন্দা থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে ২০১৯ সালের মে মাসে প্রথম কয়েকজন পুলিশ সদস্যের ডোপ টেস্ট করানোর নির্দেশ দেন। পরীক্ষায় এসব সদস্যের নিয়মিত মাদক সেবনের রিপোর্ট আসে।
এরপর গত দেড় বছরে পর্যায়ক্রমে ১১ জনের ডোপ টেস্ট করা হয়। এর মধ্যে ৯ জনই মাদক সেবন করতেন বলে ধরা পড়ে। পরীক্ষায় দু‘জন এসআই, দু‘জন এএসআই মাদক সেবনে জড়িত বলে জানা যায়। এ ছাড়া এক এসআইর কাছে মাদক পাওয়া যায়। যাদের মধ্যে একজন ট্রাফিক সার্জেন্ট রয়েছেন।
মাদক সেবনকারী এসব পুলিশ সদস্য বিভিন্ন থানা ও ক্যাম্পে কর্মরত ছিলেন। মাদকের বিষয়টি ধরা পড়ায় বিভাগীয় মামলার পাশাপাশি প্রথম দিকে অন্য জেলায় বদলি করা হয় তাদের। এর মধ্যে এক এসআইকে রাঙামাটিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। আর ওই সার্জেন্টকে কুষ্টিয়া পুলিশ লাইনে সংযুক্ত রাখা হয়েছে।
মাদক সেবনের বিষয়টি ধরা পড়ার পর অন্য সবাইকে বিভিন্ন জেলায় বদলি করা হয়। তদন্তে প্রমাণিত হওয়ার পর তাদের আটজনকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত বলেন, মাদকের সঙ্গে কোনো আপস নয়।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইজিপিও মাদকের সঙ্গে জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। তাই শুদ্ধি অভিযান চলছে। আমরা কুষ্টিয়া থেকে মাদক নির্মূলের পাশাপাশি পুলিশ থেকেও চিরতরে মাদকাসক্তদের বাড়িতে পাঠাতে চাই। কোনো মাদক সেবনকারীর পুলিশে চাকরি করার অধিকার নেই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু

বিশ্বে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
© All rights reserved © 2020 dailymuktirbarta.com

Design & Developed By : Anamul Rasel

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.