1. raselahamed29@gmail.com : admin :
  2. muktirbarta85@gmail.com : muktirbarta :
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ০২:০২ পূর্বাহ্ন
এই মুহুর্তে :
যশোরে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে বাকপ্রতিবন্ধী ১ যুবক নিহত সর্বাত্বক লকডাউন বাস্তয়নে মাঠে কঠোর অবস্থানে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ। নোয়াখালীতে ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার বিবাহিত বনাম অবিবাহিত প্রীতি ফুটবল ম্যাচ কুষ্টিয়ায় কঠোর লকডাউন সফল করতে প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক ২০ টাকায় ৩০ কেজি ওজনের কাঁঠাল জুম মিটিংয়ের মাধ্যমে লকডাউন বাস্তবায়নয়নের সাংসদ হানিফের নির্দেশনা সিরাজগঞ্জ জেলা বাসদের উদ্যোগে-বীরউত্তম কর্ণেল আবু তাহের এর স্মরণে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত। সিরাজগঞ্জে মানবতার সংগঠন “সুখ পাখি”র উদ্যোগে-গরুর মাংস, তেল ও মসলা বিতরন। গোয়ালন্দে প্রশংসায় ভাসছেন প্রবাসী ফোরাম নামক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন

কুষ্টিয়ার মিরপুরে যুবককে বেত্রাঘাত ইউপি সদস্যসহ আটক ৩

মুক্তির বার্তা ডেস্ক।
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১
  • ২৩১ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

কুষ্টিয়ার মিরপুরে পরোকীয়া প্রেমের অভিযোগে সাইফুল ইসলাম (২৭) নামের এক যুবককে সালিশ বৈঠকে প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত করার অভিযোগ উঠেছে এক ইউপি সদস্যসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে। সালিশ বৈঠকে যুবককে নির্যাতনের ভিডিও সোস্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়লে এ নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। পুলিশ এ নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত এক ইউপি সদস্যসহ স্থানীয় দুই আওয়ামীলীগ নেতাকে আটক করেছে। আটককৃতরা হচ্ছেন- মিরপুর উপজেলার মালিহাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আকরাম হোসেন, স্থানীয় ইউপি সদস্য নওয়াব আলী এবং আওয়ামী লীগ নেতা সিদ্দিক আলী। ঘটনার পর থেকেই নির্যাতনের শিকার যুবক সাইফুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন।

প্রত্যদর্শীরা জানান, শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে মালিহাদ ইউনিয়নের আশাননগর এলাকার সেন্টু আলীর ছেলে ইটভাটার শ্রমিক সাইফুল ইসলাম প্রতিবেশি আনসার সদস্য আব্দুল কুদ্দুসের স্ত্রী এক সন্তানের জননীর (২৫) সাথে অবৈধ কর্মকান্ডে লিপ্ত হন। এসময় প্রতিবেশিরা তাদের দুজনকে আটক করে। পরদিন রোববার বেলা ১১টায় আশাননগর মোড়ে গ্রাম্য সালিশ বৈঠক ডাকা হয়। মালিহাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আকরাম হোসেন গ্রামের শত শত লোকের উপস্থিতিতে বিচারের রায় ঘোষণা করেন। এ সময় সাইফুল ইসলামকে জুতার মালা পরিয়ে অর্ধেক গ্রাম ঘোরানোর পাশাপাশি, ৩০ টি বেত্রাঘাত এবং ৩ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য করা হয়। শত শত লোকের সামনেই সালিশ বৈঠকের রায় কার্যকর করা হয়।
এ ঘটনায় আনসার সদস্য আব্দুল কুদ্দুস তার স্ত্রীকে নিয়ে সংসার করতে আপত্তি জানালে সালিশ বৈঠকেই তাদের তালাক দেওয়ানো হয়। পরে স্থানীয়রা সাইফুল ইসলামের সাথে ওই গৃহবধূর বিয়ে দিতে চাইলে তিনি রাজি না হওয়ায় তাকে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।
জানা যায়, আব্দুল কুদ্দুস আনসার সদস্য হিসাবে ঢাকায় কর্মরত থাকার কারণে দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য চলে আসছিল। অন্যদিকে সাইফুল ইসলাম ভালোবেসে এক নারীকে বিয়ে করেন। বিয়ের দুই বছরের মাথায় এক কন্যা সন্তানসহ চাচাতো ভাইয়ের সাথে সাইফুলের স্ত্রী বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। সালিশ বৈঠকের প্রত্যদর্শী আমিরুল ইসলাম জানান, বৈঠকে অভিযুক্ত সাইফুল ইসলামকে প্রকাশ্যে গ্রামবাসীদের সামনে বেধড়ক পেটানো হয় এবং গলায় জুতার মালা পরিয়ে গ্রাম ঘোরানো হয়। সালিশ বৈঠকে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে এ নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।
এ ব্যপারে মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) শুভ্র প্রকাশ দাস জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিচারের নামে লাঠি দিয়ে মারধরের ভিডিও দেখে আমরা ঘটনাস্থলে যায়। ঘটনাস্থল থেকে জুতার মালাসহ আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। সেই সাথে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে থানা হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু

বিশ্বে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
© All rights reserved © 2020 dailymuktirbarta.com

Design & Developed By : Anamul Rasel

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.